education-26672-%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A7%A9-%E0%A6%A6%E0%A6%BF%E0%A6%A8%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%AA%E0%A7%80-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%80%E0%A7%9F-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%95-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%AF%E0%A7%8B%E0%A6%97%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A6%BE-%E0%A6%B6%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A7%81 রাবিতে ৩ দিনব্যাপী জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু

রাবিতে ৩ দিনব্যাপী জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু

প্রকাশ | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৯:২১

রাবি প্রতিনিধি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ও গ্রুপ অব লিবারেল ডিবেটার্স (গোল্ড) বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে তিন দিনব্যাপী ৩য় জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। 

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় ‘তথ্যের অধিকার, তথ্যই শক্তি, সুশাসনের হাতিয়ার, দুর্নীতি থেকে মুক্তি’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্সে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের উদ্বোধক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপাচার্য আব্দুস সোবহান বলেন, বিদ্বান আর শিক্ষিত ব্যক্তি কখনোই এক নয়। বিদ্বান ব্যক্তির কথা আর আচরণে তিনি কতটা শিক্ষিত তা প্রকাশ পায়। বিতর্কে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিতার্কিকরা তাদের জ্ঞানকে শাণিত করবে। তাদের কথায় তত্ত্ব, নতুন তথ্য আর জ্ঞান থাকবে। আর এই জ্ঞানকে ব্যবহার করে বিতার্কিকরা তাদের দেশকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে।

তিন দিনব্যাপী এই বিতর্ক প্রতিযোগিতায় দেশের ৩২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৬ জন বিতার্কিক অংশগ্রহণ করছে। দ্বিতীয় দিন ১৩ সেপ্টেম্বর (বুধবার) বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। ১৪ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার)  বিকাল ৫টায় সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী পর্ব অনুষ্ঠিত হবে।

গোল্ড বাংলাদেশের সভাপতি সোহরাব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা, রাজশাহী মহানগর সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সভাপতি অধ্যাপক মো. আব্দুস সালাম, টিআইবি’র পরিচালক ড. রিজওয়ান-উল-আলমসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকসহ প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

পরে ডিনস কমপ্লেক্সে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়। কর্মশালায় প্রধান আলোচক প্রধান তথ্য কমিশনার অধ্যাপক ড. মো. গোলাম রহমান বলেন, আমাদের দেশের মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা রয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী তরুণরা সেই জ্ঞানকে উপলব্ধি করে জনগণকে সঠিক তথ্যদানে সহায়তা করবে। এভাবে আমাদের দেশ হবে দুর্নীতিমুক্ত। পরে তথ্য অধিকার আইনের বিষয়ে প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া দুর্নীতিবিরোধী কার্টুন প্রদর্শন করা হয়।

আর আগে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ক্যাম্পাসের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিকরা উপস্থিত ছিলেন।