কাজী নজরুল ইসলাম মানুষের কবি

প্রকাশ : ২৫ মে ২০১৭, ১১:৪২

কাজী নজরুল ইসলামকে জাতীয় কবি হিসাবে দেখতে ভালো লাগে না। আমার মতে আমাদের জাতীয় কবি হওয়া দরকার ছিল জীবনানন্দ দাশ। কেন? কারণ জীবনানন্দ দাশের মতো করে বাংলাকে, এবং বিশেষ করে আমাদের এই পূর্ব বাংলাকে' এইরকম আর কেউ ভালবাসেননি। আমি যখনই এই কথাটি বলি তখন আমার কিছু বন্ধু একটু নাখোশ হয় যান, ‘কেন, নজরুল কী জীবনানন্দ দাশের চেয়ে ছোট কবি?' হাসি আসে না বলেন? কবি একজন ছোট আরেকজন বড় হয়? হয় হয়তো, কিন্তু সেটা হচ্ছে ধরেন কেউ যদি বলে যে রবীন্দ্রনাথ আমাদের হালের রবিউল ইসলামের চেয়ে বড় কবি সেসব ক্ষেত্রে চলে। কিন্তু বড়দের মধ্যে আবার বড় ছোট কি?

তবু ‘বড়’ কথাটাই ব্যাবহার করি। নজরুল আমাদের এই দেশের জাতীয় কবি হওয়ার চেয়ে অনেক বড় কবি। আমরা যখন জাতীয় কবি কথাটা ব্যাবহার করি বা জাতীয় সঙ্গীত বা জাতীয় পতাকা এইসব- এগুলি হচ্ছে জাতীয়তাবাদী ধারণার প্রতীকী রূপ। এই জাতীয়তাবাদ জিনিসটা কি কবি কাজী নজরুল ইসলাম পছন্দ করতেন? এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্যে আপনার রফিকুল ইসলাম স্যারের মতো নজরুল বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নাই। নজরুলের জনপ্রিয় যেসব লেখা আপনি পড়েছেন, জনপ্রিয় যেসব গান আপনি শুনেছেন সেগুলিই একটু মাথার মধ্যে রিভিউ করে দেখেন। তাইলেই বুঝতে পারবেন।

না। কাজি নজরুল ইসলাম জাতীয়তাবাদী ধারণার খুব একটা অনুরক্ত ছিলেন না। বরং তাঁকে আপনি বলতে পারেন সাচ্চা আন্তর্জাতিকতাবাদী এবং সম্ভবত আমাদের অনেক মার্ক্সিস্টএঁর চেয়েও বেশী আন্তর্জাতিকতাবাদী। আর যদি টেনেটুনে তাঁকে জাতীয়তাবাদের কাতারে আনতে চান, খুব জোর গেলে তাঁকে আপনি একজন সর্বভারতীয় জাতীয়তাবাদী বলতে পারেন। আমার ধারণা এই সর্বভারতীয় ব্যাপারটাও ওঁর মধ্যে এসেছে ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জায়গা থেকে। দেখবেন যে তিনি সাংস্কৃতিক ভিন্নতা বা ধর্ম বর্ণ গোত্র এইসবের কারণে মানুষকে আলাদা ক্রে দেখার পক্ষে না। তিনি মানুষকে দেখতেন মানুষ হিসাবেই।

এবং এইখানেই কাজী নজরুল ইসলাম জাতীয়তাবাদী সংকীর্ণতার ঊর্ধ্বে। জাতীয়তাবাদের মধ্যে একটু একটু করে সঙ্কীর্ণতা, উন্নাসিকতা, হীনমন্যতা, উগ্রতা, ঘৃণা এইসবের অনুপান কিন্তু থাকেই। এটা অনেকটা প্রেমের মতো, অতি মহান ব্যাপার, কিন্তু ঐসব নেতিবাচক ব্যাপার একটু একটু করে যোগ তবেই না প্রেমের ককটেইলটি তীব্রস্বাদু হয়। কবি নজরুলের মধ্যে এইসব পাবেন? না বললেই চলে। তিনি মানুষের কবি- মানে হচ্ছে তিনি বাঙালির কবি তো বটেই সেই সাথে সিংহলি তুর্কি রুশ কিংবা হটেনটট সবারই কবি।

একই কারণে নজরুলকে যারা মুসলমানের কবি বলেন ওরাও ভুল করেন। কারণ নজরুল মুসলমান ছিলেন কিনা সেটা নিয়ে তো প্রশ্ন আছেই, সেটা যদি বাদও দেন, তিনি যেমন মুসলমানের কবি ঠিক তেমনি হিন্দুর কবি ইসায়িদেরও কবি। জাতীয়তাবাদের গোঁড়ামির মধ্যে তাঁকে যেমন বাঁধতে পারবেন না, তেমনি ধর্মীয় সঙ্কীর্ণতার মধ্যেও পারবেন না। আমাদের প্রিয় কবি কাজী নজরুল ইসলামকে আপনারা যখন জাতীয় কবি বা ইসলামের কবি এইসব বলে তাঁর প্রতি মুহব্বত দেখাতে চান, তখন আসলে আপনারা তাঁকে আপনার নিজের কুপে টেনে নামাতে চান। কিন্তু তিনি তো মণ্ডূক নন বাহে।

কাজি নজরুল ইসলাম মানুষের কবি- তিনি প্রেমেও মানুষের কবি, বিদ্রোহেও মানুষের কবি। এই হচ্ছে আমার নজরুল ভক্তির কারণ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত