world-35708-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%AA-%E0%A6%AC%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A7-%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B9%E0%A6%B2%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A7%88%E0%A6%A0%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%B8%E0%A6%AC%E0%A7%87-%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%89%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A7%8B%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A6%BE চাপ বন্ধ না হলে বৈঠকে বসবে না উত্তর কোরিয়া

চাপ বন্ধ না হলে বৈঠকে বসবে না উত্তর কোরিয়া

প্রকাশ | ১৬ মে ২০১৮, ১২:২৪

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র পারমাণবিক অস্ত্র ত্যাগ করার জন্য চাপ দিলে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠকে যোগ দেওয়ার বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা হতে পারে বলে জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া।

আজ বুধবার (১৬ মে) বিবিসি অনলাইনের এক খবরে জানানো হয়, আগামী ১২ জুন ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের বৈঠক হওয়ার কথা। উত্তর কোরিয়া তাদের পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসতে প্রস্তুত—এ কথার পরেই ট্রাম্প ওই বৈঠকে বসতে রাজি হন। তবে আজ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার যৌথ সামরিক মহড়ায় ক্ষিপ্ত হয়েছে উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনা থেকে সরে গেছে দেশটি।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি গণমাধ্যমে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র যদি আমাদের কোণঠাসা করে এবং পারমাণবিক অস্ত্র প্রত্যাহারের একতরফা দাবি করে, তবে তাদের সঙ্গে কথা বলার কোনো আগ্রহ আমাদের নেই। উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যেকার বৈঠকের বিষয়টি পুনর্বিবেচনার দরকার হবে।

সিএনএন বলছে, পারমাণবিক কর্মসূচি বাদ দেওয়ার বদলে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক সাহায্য কখনো গ্রহণ করতে সম্মত হবে না উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পারমাণবিক কর্মসূচি বাদ দেওয়ার বদলে যুক্তরাষ্ট্র তাদের আর্থিক পুরস্কার ও সুবিধা দেওয়ার কথা বলেছে। কিন্তু তারা তাদের অর্থনীতি যুক্তরাষ্ট্রের দয়া-দাক্ষিণ্যে চলবে—এমন করে তৈরি করেননি। ভবিষ্যতে এমন কোনো চুক্তিতে সই করবেন না তারা।

উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম বলেছেন, ট্রাম্প প্রশাসন যদি সত্যিকার অর্থে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করতে চায়, তবে তার উপযুক্ত প্রতিক্রিয়া দেখানো হবে। কিন্তু তারা যদি কোণঠাসা করতে বা পারমাণবিক কর্মসূচি থেকে সরে আসার জন্য জোর করে, তবে তাদের সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ নেই।

সাহস২৪.কম/রনি/মশিউর