আত্মগোপনে থাকা ডাকাত সর্দার গ্রেপ্তার

প্রকাশ : ২৫ মে ২০২২, ১৯:১৭

সাহস ডেস্ক

ডাকাতি ও অস্ত্র আইনসহ সাতটি মামলায় জামিনে বের হয়েছিলেন দক্ষিণাঞ্চলের আন্তঃজেলা ডাকাত সর্দার শহিদুল মোল্লা (৪১)। মৌসুমী ফল বিক্রেতা সেজে আত্মগোপনে থাকেন দীর্ঘদিন। মঙ্গলবার (২৪ মে) রাতে মোবাইল ফোন ট্র্যাক করে উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে সিআইডির এলআইসির শাখা।

পরে বুধবার (২৫ মে) ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, ‘গ্রেপ্তার শহিদুল আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার। দেশের দক্ষিণাঞ্চলে তার নামে নিজস্ব ডাকাত বাহিনী আছে। সে ২০১০ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন জায়গায় সাধারণ লোকদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা, স্বর্নালংকার ও মূল্যবান সামগ্রী ডাকাতি করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে ডাকাতির প্রস্তুতির দুটি, অস্ত্র আইনে দুটি, চুরির দুটি, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি এবং অন্য একটি ধারাসহ মোট আটটি মামলা রয়েছে। আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে সাতটি মামলায় ওয়ারেন্ট জারি করা হয় ’।

তিনি আরো বলেন, ‘সাতটি মামলায় সে আদালত থেকে জামিনে ছাড়া পাওয়ার পর আত্মগোপনে এসে সাময়িক সময়ের জন্য রাজধানীর উত্তরা এলাকায় মৌসুমী ফল বিক্রেতার বেশ ধরে ছিল। শহিদুলের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ সদস্যের একটি ডাকাত দল রয়েছে। সেই দল নিয়ে সে বরিশালের উজিরপুর, বিমানবন্দর থানা, গৌরনদী, মাদারীপুরের কালকিনীসহ বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি করে আসছে।’

এদিকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে বরিশালের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তার বিরুদ্ধে বরিশালের উজিরপুর থানায় একটি মামলা করেন। সেই মামলায় বিচারিক কার্যক্রম শেষে তাকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো ১৫ দিনের কারাদন্ড দেওয়া হয়। শহিদুলের অন্যান্য সহযোগীদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে বলে জানান সিআইডির এই কর্মকর্তা।

সাহস২৪.কম/টিএ/এসটি/এসকে. 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?