জামাই শাশুড়ির তুঘলকি কাণ্ড

প্রকাশ : ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৩৪

শেখ নাদীর শাহ্, খুলনা

খুলনার পাইকগাছায় মেয়ের জামাইয়ের কাছে টাকা ধার চাওয়াকে কেন্দ্র করে শাশুড়ী ও জমাইয়ের মধ্যে মারামারির ঘটনায় জামাই আঃ কুদ্দুস (৩৫) এর কান ছিড়ে বিচ্ছিন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় শাশুড়ি হাফিজা বেগমের (৫০) হাতের শিরা কেটে গিয়ে গুরুতর জখম হয়েছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ দুই জনকেই উদ্ধার পাইকগাছা উপজেল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়েছেন। রবিবার (২ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার গদাইপুরের চেঁচুয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

জামাই উপজেলার চেঁচুয়ার আছিরউদ্দীনের ছেলে ক্ষুদ্র ফল ব্যবসায়ী আঃ কুদ্দুস (৩৫) জানান, পার্শ্ববর্তী কয়রা উপজেলার ৬ নং কয়রার বাসিন্দা তার শাশুড়ি হাফিজা (৫০) টাকা ধার চেয়ে তার বাড়িতে এসে পীড়াপীড়ি করছিল। এর আগেও তার মেঝ শ্যালকের আদালত থেকে জামিনের জন্য ৩ হাজার টাকা ধার নিয়েছিল। বর্তমানে তার আরোও এক শ্যালক ভারতে আটক থাকায় শ্বাশুড়ি পুরনায় টাকা ধার চাইতে তার বাড়িতে আসে। এর পর তিনি টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ঝগড়া হয়। পরে রবিবার দুপুরে তার শ্বশুর আবু মুছা মোড়ল তাদের বাড়িতে আসে। এর পর বিকেলে পাইকগাছা থেকে তিনি বাড়িতে প্রবেশের মুহুর্তেই টাকা ধার দেওয়া নিয়ে পুনরায় বিরোধ দেখা দেয়।

পুলিশ জানায়, ঘটনার সময় দুই জনের বাকবিতণ্ডার জেরে শ্বাশুড়ি জামাইয়ের বাম কানে কামড় বসিয়ে নিচের অংশ ছিড়ে ফেলে। এসময় জামাই আত্মরক্ষায় শ্বাশুড়িকে ধাক্কা দিলে সে পাশের ঘেরার উপর পড়ে হাতের তালুর উপরের টেন্ডুল (শিরা) কেটে জখম হয়।

থানার এসআই কায়েস জানান, মারপিটে আহত জামাই-শ্বাশুড়িকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।

পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্র সূত্রে জানাযায়, একজনের কান ছিড়ে গেছে ও অপর জনের হাতের শিরা কেটে গুরুতর জখম হয়েছে। দুই জনকেই উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে ভর্তির জন্য বলা হয়েছে।

এব্যাপারে পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউর রহমান জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করবেন।

সাহস২৪.কম/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?