ছাতকে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত শতাধিক

প্রকাশ : ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৫৩

সাহস ডেস্ক

ছাতকের জাউয়াবাজারে মঙ্গলবার (০৪ অক্টোবর) রাতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে পথচারী-পুলিশসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন। আহতরা সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, কৈতক উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র, ছাতক ও শান্তিগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি এবং চিকিৎসা নিয়েছেন। পুলিশ অর্ধ শতাধিক রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে।

জানা যায়, জাউয়াবাজার কলেজের সামনে সন্ধ্যায় কোনাপাড়ার জুনেদ আহমদ ও পূর্ব হাটির মাহতাবের মধ্যে হাতা-হাতির ঘটনা ঘটে। তারা দুইজনই ছাত্রলীগের কর্মী বলে জানা গেছে। পরে রাতে ওই দুইজন বাজারে আবারও মারামারিতে লিপ্ত হয়। এর জের ধরে কোনাপাড়া ও পুর্বহাটির লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

রাত ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত চলা সংঘর্ষে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র, ইটপাটকেল ও কাঁচের বোতল ব্যবহার করেছে। সংঘর্ষে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। সড়কে যানবাহনের দীর্ঘ লাইনের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ ও ছাতক থেকে দাঙ্গা পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে ছাতক থানার ওসি মাহবুবুর রহমান, থানার এসআই মাসুদ আল মুকিত, রেহান উদ্দিন, এএসআই সোহেল মিয়া, রিপন মিয়া, ট্রাফিকের টি আই ইন্সপেক্টর কবির হোসেন রয়েছেন।

সংঘর্ষে আকবর আলী (৫৫), খালেদ আহমদ (২৮), আলমগীর হোসেন (২৮), নাজিম উদ্দিন (১৮), জুনেদ আহমদ (২২), নাসির উদ্দিন (৪৫), মাহতাব (২২), জুনেদ মিয়াকে (৩০) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজন গুলিবিদ্ধও রয়েছেন। এ ছাড়া কৈতক উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র, শান্তিগঞ্জ ও ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আহতরা চিকিৎসা নিয়েছেন।

জাউয়াবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আহাম্মেদ উল্লাহ ভু্ঁইয়া জানান, সংঘর্ষে ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ সহ ৮ জন পুলিশ আহত হয়েছেন। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে শর্টগানের গুলিসহ ৪৭ রাউন্ড টি আর সেল নিক্ষেপ করা হয়েছে।

সাহস২৪.কম/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?