আদালত চত্বর থেকে আসামি ছিনতাই, দেশজুড়ে রেড অ্যালার্ট

প্রকাশ : ২০ নভেম্বর ২০২২, ১৭:১১

সাহস ডেস্ক

জাগৃতি প্রকাশনার স্বত্বাধিকারী দীপন হত্যা মামলার আসামি দুই জেএমবি সদস্য ঢাকার আদালতের সামনে থেকে পালিয়ে গেছে। তাদের নাম মঈনুল ও আবু সিদ্দিক। রবিবার (২০ নভেম্বর) দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

সকালে উক্ত দুই জঙ্গিকে আদালতে হাজির করা হয়। হাজিরা শেষে পুলিশ সদস্যরা তাদের নিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় জেএমবির দুই সদস্য পুলিশের চোখে-মুখে স্প্রে করলে তারা অপ্রস্তুত হয়ে যান। এই ফাঁকে জেএমবির ওই দুই সদস্য পালিয়ে যায়।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) ফারুক হোসেন জানান, আদালতে পুলিশ হেফাজত থেকে জেএমবির দুই সদস্য পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সেখানে পুলিশের ঊর্ধ্বতনরা আছেন। তারা বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছেন। জেএমবি সদস্যরা স্প্রে কোথায় পেল এবং স্প্রেটি কিসের তা তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে।

এদিকে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে পুলিশের চোখে-মুখে স্প্রে ছিটিয়ে দুই জঙ্গি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় তাদের গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে রাজধানীতে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

এ ঘটনায় পুরো আদালত এলাকাজুড়ে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। আদালত প্রাঙ্গণে মোতায়েন করা হয়েছে বাড়তি পুলিশ সদস্য। পুরো এলাকায় চালানো হচ্ছে চুলচেরা তল্লাশি।

এছাড়া, ডিবি পুলিশ, সোয়াট, র‌্যাব ও কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের সদসদের বাড়তি তৎপরতা দেখা গেছে। বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট- সোয়াট ও পুলিশের বিভিন্ন সাজোয়া যানও মোতায়েন করা হয়েছে।

ঘটনার পরপরই পুলিশের ঊর্ধ্বতনরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসা ডিবি পুলিশের প্রধান হারুন আর রশীদ বলেন, আমরা শুনেছি আদালতের গেটে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের চোখে স্প্রে করে দুই জঙ্গিকে ছিনিয়েছে অপর জঙ্গিরা। চারজন জঙ্গি মোটরসাইকেল করে আদালতে এসে দুইজনকে ছিনিয়ে নেয় পুলিশের চোখে স্প্রে মেরে। চোখে স্প্রে করার কারণে দায়িত্বরতরা কিছু দেখতে পারেনি।

ঘটনার পরপরই আমাদের গোয়েন্দা সদস্যরা আসামিদের ধরার জন্য কাজ শুরু করেছে। ঢাকার সব পয়েন্টে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। আশপাশের অলিগলিতে তল্লাশি করা হচ্ছে। আশা করছি খুব দ্রুতই তাদের গ্রেপ্তারে সক্ষম হবো।

২০২১ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় ৮ আসামির মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের মধ্যে ইনুল হাসান শামীম ওরফে সামির ওরফে ইমরান ও আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব রয়েছেন।

সাহস২৪.কম/এমআই/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?