পিএসজিতে থেকে যাওয়ার রাতেই এমবাপ্পের হ্যাটট্রিক

প্রকাশ : ২২ মে ২০২২, ১৯:২৫

সাহস ডেস্ক

রিয়াল মাদ্রিদে এমবাপ্পের যাওয়া নিয়ে অনেক আগেই গুঞ্জন চলছিল। তার জন্য কত খরচ করবে তাও ঠিক করে রেখেছিল স্প্যানিশ ক্লাবটি। এদিকে ফরাসি এই ফরোয়ার্ডকে ধরে রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়েযাচ্ছিল পিএসজি। পরে নাটকীয়তা মোড় নিচ্ছিল নানা দিকে। সব গুঞ্জন থামিয়ে শেষ পর্যন্ত পিএসজিতেই থেকার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিলেন এমবাপ্পে। আর সে রাতেই লিগের শেষ ম্যাচে মেটজকের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করলেন ফরাসি এ ফরোয়ার্ড।

শনিবার (২১ মে) দিবাগত রাতে পার্ক দেস প্রিন্সেস স্টেডিয়ামে লিগ ওয়ানের ৩৮তম ও শেষ রান্ডের ম্যাচে এমবাপ্পের হ্যাটট্রিকে মেটজকে ৫-০ গোলে হারিয়ে বড় ব্যবধানের জয়ে মৌসুম শেষ করেছে পিএসজি। বাকি গোল দুটি করেছেন নেইমার ও দলটির হয়ে বিদায়ী ম্যাচ খেলা আনহেল ডি মারিয়া।

যদিও অনেক আগেই পিএসজির লিগ শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গেছে। এই ম্যাচে প্রাপ্তির কিছু ছিল না। তবে আগ্রহের কেন্দ্রে ছিলেন এমবাপ্পে। ভক্ত-সমর্থকদের উদ্দেশ্যে নিজের নেওয়া সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন এমবাপ্পে, ‘আমি পিএসজিতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই সিদ্ধান্তে আমি অবশ্যই খুশি। আমার বিশ্বাস এই ক্লাবে আমি আরও ভাল খেলোয়াড় হয়ে উঠব। দলটি সেরা হতে মরিয়া।’ ‘আমি ফ্রান্সে জন্মেছি, বড় হয়েছি, এখানে খেলা চালিয়ে যেতে পেরেও অনেক খুশি।’ পিএসজির সভাপতি আল খেলাইফি ‘এমবাপ্পে-২০২৫’ লেখা জার্সি হাতে জানান, ‘আমি গর্বের সঙ্গে সুন্দর একটি খবর দিচ্ছি- কিলিয়ান এমবাপ্পে পিএসজির সঙ্গে ২০২৫ পর্যন্ত নতুন চুক্তি করেছে।’

তবে কিলিয়ান এমবাপ্পে প্যারিসে থেকে যেতে রাজি হওয়ার পর অনেকে হয়তো ক্যালকুলেটর নিয়ে বসছে হিসেব কষতে। নতুন চুক্তিপত্রে সই করার পর বেতন ও বোনাস হিসেবে এমবাপ্পে যে মোটা অঙ্কের টাকাটা পাবেন সেটা যে কারো চোয়াল ঝুলিয়ে দেবে! স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এএসের সংবাদকর্মী আন্দ্রেস অনরুবিয়া রামোস জানিয়েছেন, পিএসজিতে নতুন চুক্তিতে রাজি হওয়ার বোনাস (সাইনিং বোনাস) হিসেবে ৩০ কোটি ইউরো পাবেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। মৌসুমপ্রতি বেতন পাবেন ১৫ কোটি ইউরো করে। ফরাসি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, পিএসজির সঙ্গে খুব সম্ভবত ২০২৫ সাল পর্যন্ত চুক্তি নবায়ন করবেন এমবাপ্পে। অর্থাৎ তিন বছরের জন্য প্যারিসের ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করবেন তিনি।

এবার হিসাবটা করা যাক। ফুটবল ইতিহাসে কোনো খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ বেতন পাওয়ার রেকর্ডটি ছিল লিওনেল মেসির। বার্সেলোনায় ২০১৮ সালে চুক্তি নবায়নের পর করপূর্ব প্রায় ১০ কোটি ইউরো পেতেন আর্জেন্টাইন তারকা। সেই রেকর্ড অতীত হয়ে যাচ্ছে এমবাপ্পেকে নিয়ে রিয়াল ও পিএসজির টানাটানিতে। নতুন চুক্তিতে এমবাপ্পকে পিএসজি মৌসুমপ্রতি যে পারিশ্রমিক দেবে, তাতে ফরাসি ফরোয়ার্ডই হবেন ইতিহাসের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত ফুটবলার-কর কেটে রাখার পর যেটির পরিমাণ মৌসুমপ্রতি প্রায় ১৫ কোটি ইউরো।

ফ্রান্সে শীর্ষস্থানীয় ফুটবলারদের যেহেতু আয়ের প্রায় ৫০ শতাংশ কর দিতে হয়, তাই কর বাদে যে হিসাবটা দাঁড়াচ্ছে, তাতেও বার্সায় তখন মেসি যে বেতন পেতেন, পিএসজিতে নতুন চুক্তিতে এমবাপ্পে তার তিন গুণ বেতন পাবেন। পিএসজিতে এখন মৌসুমপ্রতি প্রায় ৪ কোটি ইউরো বেতন পেয়ে থাকেন মেসি। নেইমার পান ৪ কোটি ৮০ লাখের কিছু বেশি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বেতন ২ কোটি ৩৬ লাখ ইউরো।

চুক্তি নবায়ন করায় বোনাস হিসেবে ৩০ কোটি ইউরো পাবেন এমবাপ্পে। এর সঙ্গে তিন বছরের পারিশ্রমিক যোগ করলে অঙ্কটা দাঁড়ায় মোট ৭৫ কোটি ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৬ হাজার ৯৩০ কোটি টাকা)। একজন খেলোয়াড়, তা যত বড় তারকাই হোন না কেন, তাকে ধরে রাখতে এই পরিমাণ বেতন-বোনাসের প্রস্তাব ইতিহাসেই নেই। চুক্তি নবায়ন আনুষ্ঠানিকভাবে হয়ে গেলে নতুন এক ইতিহাসই গড়বেন এমবাপ্পে। তবে বিষয়টি মোটেও পছন্দ হয়নি লা লিগা সভাপতি হাভিয়ের তেবাসের। টুইটে তার মন্তব্য প্রকাশ করেছেন ইতালিয়ান সংবাদকর্মী ফ্যাব্রিজিও রোমানো, ‘সাম্প্রতিক মৌসুমে ৭০ কোটি ইউরো লোকসান দেওয়ার পর এমবাপ্পের চুক্তি নবায়নে পিএসজি যে বিশাল অঙ্কের বেতন-বোনাস সেধেছে, সেটা ৬০ কোটি ইউরো ছাড়িয়ে যাবে। এটা ফুটবলের জন্য অপমান। তারা (পিএসজি) সুপার লিগের মতোই বিপজ্জনক।’

রবিবার (২২ মে) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যায় ইউরোপের সংবাদমাধ্যম জানায়, রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজকে ফোনে ‘না’ বলে দিয়েছেন এমবাপ্পে। অর্থাৎ মাদ্রিদে না গিয়ে প্যারিসেই থাকছেন এই তারকা। এর আগে পিএসজি তাকে ধরে রাখতে নিজেদের প্রকল্পের প্রধান, কোচ বাছাই এবং সতীর্থ বেছে নেওয়ার ক্ষমতাও দিতে চেয়েছে এমবাপ্পেকে। এখন পিএসজির সঙ্গে এমবাপ্পের আনুষ্ঠানিক চুক্তি নবায়নই শুধু বাকি।

২০১৭ সালে মোনাকোতে থাকার সময় এমবাপ্পে রিয়ালে যাওয়ার গুঞ্জন শোনা যায় প্রথমবার। কিন্তু ধারে পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর এমবাপ্পের সঙ্গে স্থায়ী চুক্তি করে ক্লবটি। গত মৌসুমে রিয়ালে এমবাপ্পের আসার সম্ভাবনা জোরলো হয়। পিএসজি ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন এমবাপ্পে। কিন্তু পিএসজি তাকে কোনভাবেই ছাড়তে রাজি হয়নি। রিয়াল পিএসজিতে রেকর্ড ট্রান্সফার ফি দিতে চাইলেও তাতে রাজি হয়নি পিএসজি। বছর শুরু থেকেই 'ফ্রি এজেন্ট ' হিসেবে নতুন ক্লাবে যোগ দেওয়ার সুযোগ তৈরি হয় এমবাপ্পের। মনে হচ্ছিল যেকোনো সময় রিয়ালে যোগ দেবেন তিনি। তবে আরও অনেক নাটকের পর শেষ পর্যন্ত পিএসজিতেই থেকে নতুন চুক্তি করে নিলেন তিনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?